রমাদান বিষয়ক লেকচার কালেকশন

রমাদান মাস উপলক্ষ্যে এর মাসআলা-মাসায়িল, গুরুত্ব ও উদযাপনের পদ্ধতি নিয়ে আমাদের ধারাবাহিক আয়োজনে যুক্ত হচ্ছে অডিও লেকচার কালেকশন। রমযান উপলক্ষে দেশের ও দেশের বাইরের বিখ্যাত আলেম-উলামাদের নিয়ে আমাদের বিশেষ লেকচার কালেকশন। এগুলো শুধু রমাদান বিষয় নয়, সেই সাথে এর সাথে জড়িত ইতিকা’ফ, তারাবীহ, উমরাহ, রমযানের প্রস্তুতি, রমযানের পর কী করণীয়, ইফতার, সাহরী, লাইলাতুল ক্বাদর নিয়েই এই লেকচার কালেকশন। বিস্তারিত…


য’ইফ ও জাল হাদীস সিরিজ ( ৪র্থ খন্ড )

উম্মাতের মাঝে জাল ও যইফ হাদীস এর কুপ্রভাব দূর করতে মুহাদ্দিসগণের প্ররিশ্রমের অন্ত নেই। আল্লাহর এই ওয়াহী সংরক্ষণ করতে তাঁরা পরিশ্রম করেছেন। তারা সহীহ ও যইফ হাদীসগুলোকে আলাদা করে আমাদের মাঝে তুলে ধরেছেন যাতে আমরা যইফ হাদীসে উপর আমল করে বিভ্রান্ত না হই। এছাড়া যেন আমরা সহীহ হাদীসের উপর আমল করতে পারি। এরকমই একজন গত শতাব্দীর অন্যতম সেরা মুহাদ্দিস শায়খ নাসিরুদ্দীন আলবানী (রহ)। তিনি যইফ ও জাল হাদীস সিরিজ নিয়ে “সিলসিলাতুল যইফাহ ওয়াল মাউযুআহ’ নামে হাদীস সিরিজ লিখেছেন। এই বইটিরই তৃতীয় খন্ড প্রকাশ বাংলায় প্রকাশিত হয়েছে। এই গ্রন্থটির প্রথম ও দ্বিতীয় ও তৃতীয় খন্ড ইন্টারনেটে প্রকাশিত হয়েছে।  আমরা এই সিরিজটির চতুর্থ খন্ড নিয়ে এসেছি। আলহামদুলিল্লাহ।

বইটির অনুবাদ করেছেন।  আবূ শিফা আকমাল হুসাইন বিন বাদীউযযামান। প্রকাশ করেছে তাওহীদ পাবলিকেশন্স। বিস্তারিত…


ফিতনার সময় নির্দেশনা ও করণীয়

রচনায় : সাঈফুদ্দীন বিলাল মাদানী
ফিতনার মূল:

সকল প্রকার ফিতনা আল্লাহর সৃষ্টির মাঝে তাঁর সৃষ্টিগত নিয়ম। আল্লাহ তা‘য়ালা তাঁর মুমিন বান্দাদেরকে কাফেরদের থেকে এবং সত্যবাদীদেরকে মিথ্যুক হতে আলাদা প্রমাণ করার জন্য এসব দ্বারা পরীক্ষা করেন।
আল্লাহ তা‘য়ালার বাণী:

أَحَسِبَ النَّاسُ أَن يُتْرَكُوا أَن يَقُولُوا آمَنَّا وَهُمْ لَا يُفْتَنُونَ

وَلَقَدْ فَتَنَّا الَّذِينَ مِن قَبْلِهِمْ ۖ فَلَيَعْلَمَنَّ اللَّهُ الَّذِينَ صَدَقُوا وَلَيَعْلَمَنَّ الْكَاذِبِينَ
“মানুষ কি মনে করে যে, তারা একথা বলেই অব্যহতি পেয়ে যাবে যে, ‘আমরা বিশ্বাস করি’ এবং তাদেরকে পরীক্ষা করা হবে না? আমি তাদেরকে পরীক্ষা করেছি, যারা তাদের পূর্বে ছিল। আল্লাহ অবশ্যই জেনে নেবেন যারা সত্যবাদী এবং নিশ্চয় জেনে নেবেন মিথ্যুকদেরকে।” [সূরা আনকাবুত:২-৩]
আর যখন ফেতরা আবশ্যকীয়ভাবে ঘটবেই তখন সে ব্যাপারে জ্ঞান থাকা জরুরি। এ ছাড়া সে বিষয়ে প্রস্তুতি ও তার বিপদ থেকে ভয় করা ও তা হবে বাঁচার পূর্ণ জানা একান্তভাবে প্রয়োজন।

বিস্তারিত…


উম্মুল মুমিনীন খাদীজাতুল কুবরা (রাঃ)-এর সংক্ষিপ্ত জীবনী

রচনায় : – তাহেরুন নেসা

মা খাদীজা (রাঃ) ছিলেন নবী সহধর্মিণীদের মধ্যে সর্বপ্রথমা ও সর্বশ্রেষ্ঠা, জান্নাতী মহিলাদের প্রধান হযরত ফাতিমাতুয যাহ্‌রার মহীয়সী মাতা। নবী মুহাম্মাদ (সা:)-এর নবুওয়াত প্রাপ্তির পর এই মহীয়সী নারী সর্বপ্রথম ইসলাম গ্রহণ করেছিলেন। তিনিই একমাত্র মহিলা যাঁকে দুনিয়া থেকেই জান্নাতের খোশ খবর জ্ঞাপন করা হয়েছিল। জাহেলী যুগের কোন প্রকার অন্যায় বা পাপ তাকে স্পর্শ করেনি বিধায় বাল্যকালেই তিনি ‘তাহেরা বা পবিত্রা’ উপাধিতে ভূষিতা হয়েছিলেন এবং এই নামেই তিনি হয়ে উঠেছিলেন পরিচিতা ও খ্যাতনামা। রূপে-গুণে তিনি ছিলেন অতুলনীয়। সতী-সাধ্বী ও পতিব্রতা এই বিদুষী মহিলার গুণাবলী বর্ণনায় বুখারী ও মুসলিম সহ বিভিন্ন হাদীছ গ্রন্থে বহু সংখ্যক হাদীছ বর্ণিত হয়েছে।

বিস্তারিত…


মহিমান্বিত ‘লাইলাতুল ক্বদর’ কি একই রাত্রিতে অতিবাহিত হয়

 মহিমান্বিত ‘লাইলাতুল ক্বদর’ কি একই রাত্রিতে অর্থাৎ শুধুমাত্র ২৭-তম রাত্রিতে অতিবাহিত হয়?

রচনায় :- ফরিদ দেওয়ান****

লাইলাতুল ক্বদর পবিত্র মাহে রমযানের একটি মহিমান্বিত রাত। এই রাতে কুরআন নাযিল হয়েছিলো। এই রাত উদযাপনের ব্যাপারে ইসলামে তাগিদ দেয়া হয়েছে। এই রাতটি রমযান মাসের শেষ দশকে বিদ্যমান। হাদীসে শেষ দশকের বিজোড় রাতে বিদ্যমান বলে নির্দেশনা এসেছে। অথচ আমাদের সমাজে শুধুমাত্র ২৭শে রমযানকে মহা ধূমধামে উদযাপন করা হয়। একটি হাদীসকে বিবেচনা করে এই বিষয়টি সৃষ্টি হয়েছে। অথচ এই মহিমান্বিত রাত প্রতিবছর পরিবর্তিত হয়। আমরা অন্যান্য হাদীসগুলোকে বিবেচনায় আনলে স্পষ্ট বুঝতে পারবো ইনশাআল্লাহ। এ বিষয়েই এই পোস্টের অবতারণা ।

এ বিষয়ে পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তা’আলা ইরশাদ করেন,

شَهْرُ رَمَضَانَ الَّذِي أُنزِلَ فِيهِ الْقُرْآنُ هُدًى لِّلنَّاسِ وَبَيِّنَاتٍ مِّنَ الْهُدَىٰ وَالْفُرْقَانِ ۚ فَمَن شَهِدَ مِنكُمُ الشَّهْرَ فَلْيَصُمْهُ ۖ وَمَن كَانَ مَرِيضًا أَوْ عَلَىٰ سَفَرٍ فَعِدَّةٌ مِّنْ أَيَّامٍ أُخَرَ ۗ يُرِيدُ اللَّهُ بِكُمُ الْيُسْرَ وَلَا يُرِيدُ بِكُمُ الْعُسْرَ وَلِتُكْمِلُوا الْعِدَّةَ وَلِتُكَبِّرُوا اللَّهَ عَلَىٰ مَا هَدَاكُمْ وَلَعَلَّكُمْ تَشْكُرُونَ

“রমযান মাস হল সে মাস, যাতে নাযিল করা হয়েছে কোরআন, যা মানুষের জন্য হিদায়াত এবং সত্যপথ যাত্রীদের জন্য সুস্পষ্ট পথ নির্দেশ আর ন্যায় ও অন্যায়ের মাঝে পার্থক্য বিধানকারী। কাজেই তোমাদের মধ্যে যে লোক এ মাসটি পাবে, সে এ মাসের রোযা রাখবে।” বিস্তারিত…


কালিমা শাহাদাত ও এর শর্ত (পর্ব-২)

আগের পর্বের লিংক

৮. আল্লাহ ব্যতীত সকল উপাস্যদের অস্বীকার করা :

বান্দার উচিত আল্লাহ তাআলা ব্যতীত ধারণা প্রসূত সকল উপাস্য-মা’বূদ অস্বীকার করা। সাথে সাথে এ বিশ্বাস সুদৃঢ় করা যে, আল্লাহ ছাড়া প্রকৃত কোন উপাস্য নেই। আল্লাহ ছাড়া যাদের এবাদত করা হচ্ছে সব অসাড়। যে কেউ এ সমস্ত কাজ করে সে আল্লাহর উপর অপবাদ আরোপ করে, হোক না সে উপাস্য (মা’বুদ) নৈকট্য প্রাপ্ত ফেরেস্তা, প্রেরিত রসূল, নেককার ওলী, পাথর, গাছ, চন্দ্র, দল, গোষ্টি-জ্ঞাতি, অথবা কোন সংবিধান…ইত্যাদি।

ইরশাদ হচ্ছে-

فَمَنْ يَكْفُرْ بِالطَّاغُوتِ وَيُؤْمِنْ بِاللَّهِ فَقَدِ اسْتَمْسَكَ بِالْعُرْوَةِ الْوُثْقَى لَا انْفِصَامَ لَهَا وَاللَّهُ سَمِيعٌ عَلِيمٌ

‘যে তাগুতকে অস্বীকার করবে এবং আল্লাহতে বিশ্বাস স্থাপন করবে সে ধারণ করে সুদৃঢ় হাতল যা ভাংগবার নয়। আর আল্লাহ সবই শুনেন এবং জানেন।’[i]

وَلَقَدْ بَعَثْنَا فِي كُلِّ أُمَّةٍ رَسُولًا أَنِ اُعْبُدُوا اللَّهَ وَاجْتَنِبُوا الطَّاغُوتَ

‘আমি প্রত্যেক উম্মতের মধ্যেই রসূল প্রেরণ করেছি এই মর্মে যে, তোমরা আল্লাহর ইবাদাত কর এবং তাগুতকে বর্জন কর।’[ii] বিস্তারিত…


ইসলামে স্বামী-স্ত্রীর অধিকার

বিবাহ স্বামী-স্ত্রীর মাঝে একটি সুদৃঢ় বন্ধন। আল্লাহ তাআলা এর চির স্থায়িত্ব পছন্দ করেন, বিচ্ছেদ অপছন্দ করেন। এরশাদ হচ্ছে―

وَكَيْفَ تَأْخُذُونَهُ وَقَدْ أَفْضَى بَعْضُكُمْ إِلَى بَعْضٍ وَأَخَذْنَ مِنْكُمْ مِيثَاقًا غَلِيظًا. ﴿النساء :২০﴾

‘তোমরা কীভাবে তা (মোহরানা) ফেরত নিবে ? অথচ তোমরা পরস্পর শয়ন সঙ্গী হয়েছ। সাথে সাথে তারা তোমাদের থেকে চির বন্ধনের সুদৃঢ় অঙ্গিকারও নিয়েছে।’[1]

এ চুক্তিপত্র ও মোহরানার কারণে ইসলাম স্বামী-স্ত্রী উভয়ের মাঝে কতক দায়দায়িত্ব ও অধিকার নিশ্চিত করেছে। যা বাস্তবায়নের ফলে দাম্পত্য জীবন সুখী ও স্থায়ী হবে—সন্দেহ নেই। সে সব অধিকারের প্রায় সবগুলোই সংক্ষেপ আকারে বর্ণিত হয়েছে কোরআনের নিম্নোক্ত আয়াতে— বিস্তারিত…


কালিমা শাহাদাত ও এর শর্ত (পর্ব-১)

লেখক : সানাউল্লাহ নজির আহমদ

ইসলামের গোড়া পত্তন হয়েছে শিরকের কলঙ্ক ও পৌত্তলিকতার নোংড়ামী মুক্ত খাঁটি, নিভের্জাল তাওহিদ তথা একত্ববাদের উপর। যার রূপকার لاإله إلا الله ও محمد رسول الله এর শাহাদাত বা সাক্ষ্য প্রদান।

لاإله إلا الله এর শাহাদাতের উদ্দেশ্য: বিনয়-নম্র ভাবে নিজেকে আল্লাহর সমীপে সপে দেয়া, তার বশ্যতা মেনে নেয়া। তিনি এক তার কোন শরীক নেই, এটা ঘোষণা দেয়া।

محمد رسول الله এর শাহাদাতের উদ্দেশ্য: নিজেকে সপে দেয়ার পদ্ধতি ও এবাদতের বিশদ বর্ণনা মুহাম্মদ সা. এর নিকট হতে গ্রহণ করা। উভয় শাহাদাতের মৌখিক উচ্চারণ ইসলাম গ্রহণ ও ইসলামকে আলিঙ্গন করার বহিঃপ্রকাশ।

ক্বিয়ামতের দিন দুইটি প্রশ্নের উত্তর না দেয়া পর্যন্ত কোন আদম সন্তান স্বীয় অবস্থান ত্যাগ করতে পারবে না। বিস্তারিত…


ইসলামের দৃষ্টিতে রোগ ও তার প্রতিকার

রচনায় :- মুহিবুর রহমান হেলাল

ভূমিকাঃ

ইসলাম বাস্তবমুখী পূর্ণাঙ্গ জীবন বিধান। মানব জাতি যখন কোন সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে, ইসলাম তখন তার সমাধান দিয়েছে। মানুষ আল্লাহ্‌র দাস। তাঁর হুকুম পালনে একনিষ্ঠ মানুষ কখনও কখনও শারীরিক এবং মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে আল্লাহ্‌র হুকুম পালনে অক্ষম হয়ে পড়ে। মানুষ যেন আল্লাহ্‌র হুকুম পালনে অক্ষম হয়ে না পড়ে, তার জন্য ইসলাম দিয়েছে বৈজ্ঞানিক সমাধান। আর এই বৈজ্ঞানিক সমাধানই হচ্ছে চিকিৎসা।

ইসলামের দৃষ্টিতে রোগঃ

একবিংশ শতাব্দীর চরম উন্নতির যুগেও মানুষ রোগ সম্পর্কে নানা অদ্ভুত চিন্তা-ভাবনা করে থাকে। অনেকের মতে রোগ একটি মুসিবত এবং এলাহী গযব। আবার অনেকের মতে রোগ হ’ল জিন, ভূত এবং প্রেতাত্মার আছর। মূলতঃ রোগ হ’ল আল্লাহ্‌র পক্ষ থেকে পরীক্ষা। বিস্তারিত…


কুরআন-সুন্নাহর আলোকে ফিরিশতা জগত

ইসলামী শারীআহতে ফিরিশতাগণের প্রতি ঈমান আনা ঈমানের দ্বিতীয় রুকন। আল্লাহর প্রতি ঈমান আনার পরই ফিরিশতাদের প্রতি ঈমান আনা বাধ্যতামূলক। তথাপি আমাদের সমাজে এই অদৃশ্য জগত সম্পর্কে অনেকের সন্দেহ ও ভূল ধারণা বিদ্যমান। যেমনটা জাহেলী যুগেও ছিলো। জাহেলী যুগে অনেকেই ফিরিশাতদের আল্লাহর কন্যা বলে দাবী করতো (নাউযুবিল্লাহ) যা কুফরী এবং এই মিথ্যা কথা থেকে আল্লাহ পবিত্র। ফিরিশতা সম্পর্কে আমাদের মাঝেও অনেকের ভুল ধারণা হয়েছে। আমাদের সমাজে অনেকেই তাদের অস্তিত্ত্বকে স্বীকার করতে চান না। অনেকেই তাদেরকে উচ্চে অবস্থান দিয়ে আল্লাহকে বাদ দিয়ে ফিরিশতাদের কাছে চায়। এছাড়াও আমরা ক্রমাগত অনেক পাপ করছি যা ফিরিশতাদের অভিশাপ বহন করে আনছে।  বাংলাভাষায় এ সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ ধারণা পেতে  তেমন প্রামাণ্য গ্রন্থ বের হয়নি। এই বইটিতে সহজ-সরলভাবে ও প্রমাণ সহকারে ফিরিশতাদের সেই অদৃশ্য জগত সম্পর্কে কুরআন-সুন্নাহর আলোকে তুলে ধরা হয়েছে। বিস্তারিত…