Tag Archives: abdul hamid faiji

অবৈধ বিবাহ

বিবাহ-বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে নারী-পুরুষ বৈধভাবে যৌনসুখ উপভোগ করতে পারে। কিন্তু কোন্ পুরুষ নারীর জন্য বৈধ এবং কোন্ নারী পুরুষের জন্য অবৈধ বা অগম্যা তার বিস্তারিত বিধান রয়েছে ইসলামে।[1] অবৈধ নারীকে অথবা অবৈধ নিয়মে বিবাহ করে সংসার করলে ব্যভিচার করা হয়। এমন কতকগুলি কারণ রয়েছে যার কারণে নারী-পুরুষের আপোসে কোন সময়ে বিবাহ বৈধ নয়। প্রথম কারণ, রক্তের সম্পর্কঃ নারী-পুরুষের মাঝে রক্তের ... Read More »

যৌনাচার ও ব্যাভিচার

আল্লাহ তা’আলা পৃথিবী আবাদ রাখার জন্য মানুষকে খলীফারূপে সৃষ্টি করেছেন। তার মধ্যে এমন প্রকৃতি ও প্রবৃত্তি দান করেছেন যাতে সে অতি সহজে নিজের বংশ বৃদ্ধি ও আবাদ করতে পারে। ক্ষুধা-নিবৃত্তি করে যেমন তার নিজের অস্তিত্ব অবশিষ্ট থাকে, তদ্রূপ যৌনক্ষুধা নিবৃত্তি করলে তার বংশ বাকী থাকবে। এই যৌনক্ষুধা এমন এক ক্ষুধা, যার তাড়নায় ক্ষুধার্ত মানুষ নিজেকে অনেক সময় নিয়ন্ত্রণ ও আয়ত্তে ... Read More »

শবে-মিরাজ পালন করা বিধান

শবে-মিরাজঃ  প্রতি বৎসর ২৭শে রজব বিভিন্ন দেশে বহু মুসলমান ভক্তি ও উদ্দীপনার সাথে ‘শবে-মিরাজ’ পালন করে থাকেন। তারা এই রাত্রে ইবাদাত করেন ( বিশেষ পদ্ধতিতে১২ রাকআত নামায পড়েন, নামায শেষে ১০১ বার দরূদ শরীফ পাঠ করে দু’আ ও মুনাজাত করেন) এবং পরদিন রোযা রাখেন। কেউ কেউ ভাড়াটিয়া হুযুর দিয়ে মিলাদ পড়ান, ভাড়াটিয়া হাফেয দিয়ে কুরআনখানি বা শবীনা পাঠ করান। তারা ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৪৩) 

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী চতুর্থ রাকআত  নামায ৩ রাকআত বিশিষ্ট (মাগরেবের) হলে ৩ রাকআত পড়ে, নচেৎ ৪ রাকআত বিশিষ্ট হলে তা তৃতীয় রাকআতের মত পড়ে শেষ তাশাহহুদের জন্য বসে যেতেন। এই বৈঠকে তিনি তাঁর বাম পাছার উপর বসতেন। এতে তাঁর দু’টি পায়ের পাতা এক দিকে হয়ে যেত। (বুখারী ৮২৮, আবূদাঊদ, সুনান ৯৬৫নং, বায়হাকী) বাম পা-কে ডান পায়ের রলা ও ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৪২)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী তাশাহহুদের পর নামায ২ রাকআত বিশিষ্ট (যেমন ফজর, জুমুআহ, ঈদ প্রভৃতি) হলে দুআ মাসূরার পর সালাম ফিরলে নামায শেষ হয়ে যায়। কিন্তু ৩ বা ৪ রাকআত বিশিষ্ট (মাগরিব, এশা, যোহ্‌র, আসর, ইত্যাদি) হলে তাশাহহুদ পড়ে তৃতীয় রাকআতের জন্য উঠে যেতে হবে। ইবনে মাসঊদ (রাঃ) বলেন, ‘—অতঃপর নামাযের মাঝে হলে নবী (সাঃ) তাশাহহুদ পাঠ করে উঠে ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৪১)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী দুআ-এ মাসূরাহ্‌ নবী মুবাশ্‌শির (সাঃ) নামাযে বহু প্রকার দুআ (প্রার্থনা) করতেন। এক এক সময়ে এক এক প্রকার দুআ তিনি পাঠ করে আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করতেন। সাহাবাগণকে ‘তাহিয়্যাত’ শিখানোর পর বলেছিলেন, “এরপর তোমাদের মধ্যে যার যা ইচ্ছা ও পছন্দ সেই দুআ বেছে নিয়ে দুআ করা উচিত।” (বুখারী ৮৩৫, মুসলিম,  মিশকাত ৯০৯নং) অবশ্য সেই দুআ অপেক্ষা আর ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৪০)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী দুআ মাসূরার পূর্বে দরুদের গুরুত্ব মহানবী (সাঃ) এক ব্যক্তিকে তার নামাযে দুআ করতে শুনলেন, লোকটি মহান আল্লাহর গৌরব বর্ণনা করল না, আর তাঁর নবীর উপর দরুদও পড়ল না। তিনি বললেন, “এ তো তাড়াতাড়ি করল।” অতঃপর তাকে ডেকে সকলের উদ্দেশ্যে বললেন, “যখন তোমাদের মধ্যে কেউনামায পড়বে, তখন সে যেন তার প্রতিপালকের প্রশংসা বর্ণনার মাধ্যমে আরম্ভ করে। ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৩৯)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী দরুদ তাশাহহুদের পর নবী মুবাশ্‌শির (সাঃ) নিজের উপর দরুদ পাঠ করতেন। (আহমাদ, মুসনাদ ৫/৩৭৪, হাকেম, মুস্তাদরাক) আর উম্মতের জন্যও তাঁর উপরের সালামের পর দরুদ পড়াকে বিধিবদ্ধ করেছেন। মহান আল্লাহর সাধারণ আদেশ রয়েছে, “— হে ঈমানদারগণ! তোমরাও নবীর উপর দরুদ পাঠ কর এবং উত্তমরুপে সালাম পেশ কর।” (কুরআন মাজীদ ৩৩/৫৬) আর মহানবী (সাঃ) বলেন, “যে ব্যক্তি ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৩৮)

 রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী তাশাহহুদের গুরুত্ব নবী মুবাশ্‌শির (সাঃ) প্রত্যেক দুই রাকআতে ‘তাহিয়্যাহ্‌’ (তাশাহহুদ) পাঠ করতেন। (মুসলিম, সহীহ ৪৯৮, আহমাদ, মুসনাদ) বৈঠকের শুরুতেই তিনি বলতেন, “আত্‌ তাহিয়্যা-তু লিল্লা-হি—।” (বায়হাকী, সিফাতু স্বালাতিন নাবী (সাঃ), আলবানী ১৬০পৃ:) দুই রাকআত পড়ে ‘তাশাহহুদ’ পাঠ করতে ভুলে গেলে তিনি তার জন্য ভুলের সিজদাহ করতেন। (বুখারী, মুসলিম,  ইরওয়াউল গালীল, আলবানী ৩৩৮ নং) তিনি তাশাহহুদ পড়তে ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৩৭)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী তাশাহহুদের বৈঠক দ্বিতীয় রাকআতের সকল কর্ম (শেষ সিজদাহ) শেষ করে মহানবী (সাঃ) দুই সিজদার মাঝের বৈঠকের মত বাম পা বিছিয়ে তার উপর বসে যেতেন এবং ডান পায়ের পাতাকে খাড়া করে রাখতেন। (বুখারী, আবূদাঊদ, সুনান ৭৩১নং) তাশাহহুদের জন্য বসতে আদেশ দিয়ে নামায ভুলকারী সাহাবীকে তিনি বলেছেন, “— অতঃপর তুমি যখন নামাযের মাঝে বসবে, তখন স্থির হবে ... Read More »