ইসলাম গ্রহণের গল্প

এমির শাহাদাত পাঠের সাথে একাকার হলো আমাদের চোখের পানি

সারা বৃটেইনে ‘ভিজিট মাই মাসজিদ’ নামে আজ ছিলো মসজিদ ওপেন ডে। এ দিনে আমরা অমুসলিমদের জন্য মসজিদ খুলে দেই। তারা আসে, ঘুরে ফিরে দেখে, ব্যাখ্যা শুনে, প্রশ্ন করে। গত ২০১৫ সাল থেকে মুসলিম কাউন্সিল অফ বৃটেইন সারা দেশে এই মুবারাক কাজ অর্গানাইজ করে আসতেছে। তবে মেইন স্টীম মিডিয়াতে ভালো কভারেজ দেয়ায় অমুসলিম নর-নারীর ঢল নেমেছিলো এবার। প্রায় ৩৫ জন মুসলিম স্বচ্ছাসেবক ভাই বোন সময় দিয়েছেন তাদের সাথে। তাদের নানা প্রশ্নের জবাব দিয়েছে, ইসলামের নানা বিষয়ের উপর দেয়া পোস্টার খুটে খুটে বুঝানোর চেষ্টা করেছে।


আমার ক্লাশ শেষ হওয়ার পর মসজিদ কমিটির সম্মানিত সেক্রেটারী ফরিদ ভাই ডাকলেন। শায়খ, এক বোন আপনাকে খুঁজছেন, কথা বলবেন। আমি এগিয়ে গেলাম। চল্লিশোর্ধ, গেঞ্জি পরা, প্যান্ট তখনো। হাত অর্ধেক বের হয়ে আছে। তবে কারো কাছ থেকে ধার করে মাথায় স্কার্ফ বেঁধে নিয়েছে্ন। শাদা মুখ কান্নার আভায় লাল হয়ে আছে। আমি আরো কয়েকজন বোন নিয়ে ও ফরিদ ভাইকে নিয়ে অফিস রূমে বসলাম। নানা কথা হলো। যখন বললাম, এমি, এখন আমি শাহাদাহ বলবো। আপনি এটা বলার সাথে সাথে মুমিন হিসেবে পরিগণিত হবেন, এবং পৃথিবীর মাঝে আপনি নতূন জনম নেয়া বাচ্চার মত পবিত্র হয়ে যাবেন। তিনি এবার হাসলেন, জোরে, কিন্তু দুচোখ বেয়ে বইছে যেন অশ্রুর নদী। আমার সাথে শাহাদাহ পড়লেন, অনুবাদ বুঝেলন, সবাই আমরা কাঁদলাম আর ঈমানের নবায়ন করে নিলাম।

বললাম, এমি, নাম কি ঐটাই থাকবে নাকি পরিবর্তন করবেন। তিনি পরিবর্তন করবেন জানালেন। পাসপোর্ট অফিসের সাথে কথা বলেই তা করবেন জানালেন। আমার নাম্বার নিলেন, বল্লেন, ডক্টর, আমি ইসলাম নিয়ে অনেক জানতে চাই, অনেক মানতে চাই, আমাকে সময় দিতে হবে। তার পবিত্র মুখের হাসির সাথে মেশা অশ্রুর চিকচিক করা আলোর দিকে তাকিয়ে আমি বল্লামঃ ডোর অফ আওয়ার মস্ক উল্ড অলওয়েয বি ওপেন ফর ইউ।
(Dr Abdus Salaam Azadi)

সূত্র : এই ফেসবুক পেজ

মতামত দিন

Solve : *
19 − 4 =