Author Archives: wj_admin

দরসে কুরআন : দ্বীনের উপর দৃঢ়তা

إِنَّ الَّذِينَ قَالُوا رَبُّنَا اللهُ ثُمَّ اسْتَقَامُوا تَتَنَزَّلُ عَلَيْهِمُ الْمَلَائِكَةُ أَلاَّ تَخَافُوا وَلاَ تَحْزَنُوا وَأَبْشِرُوا بِالْجَنَّةِ الَّتِي كُنْتُمْ تُوعَدُونَ- نَحْنُ أَوْلِيَاؤُكُمْ فِي الْحَيَاةِ الدُّنْيَا وَفِي الْآخِرَةِ وَلَكُمْ فِيهَا مَا تَشْتَهِي أَنْفُسُكُمْ وَلَكُمْ فِيهَا مَا تَدَّعُونَ- نُزُلًا مِنْ غَفُورٍ رَحِيمٍ- – অনুবাদ : ‘নিশ্চয় যারা বলে আমাদের পালনকর্তা আল্লাহ। অতঃপর তাতে অবিচল থাকে। তাদের উপর ফেরেশতা অবতীর্ণ হয় এবং বলে, তোমরা ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৩৩)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী সিজদার যিক্‌র ও দুআ সিজদায় গিয়ে মহানবী (সাঃ) এক এক সময়ে এক এক রকম দুআ পাঠ করতেন। তাঁর বিভিন্ন দুআ নিম্নরুপ:- سُبْحَانَ رَبِّىَ الأَعْلى। (সুবহা-না রাব্বিয়্যাল আ’লা) অর্থ- আমি আমার মহান প্রভুর সপ্রশংস পবিত্রতা ঘোষণা করি। ৩ বার বা ততোধিক বার। (আবূদাঊদ, সুনান ৮৮৫নং, দারাক্বুত্বনী, সুনান, ত্বাহা, বাযযার, ত্বাবারানী)  سُبْحَانَ رَبِّىَ الأَعْلى وَ بِحَمْدِهِ। উচ্চারণ:-  ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৩২)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী সিজদাহ ও তার পদ্ধতি কওমার পর নবী মুবাশ্‌শির (সাঃ) তকবীর বলে সিজদায় যেতেন। নামায ভুলকারী সাহাবীকে সিজদাহ করতে আদেশ দিয়ে বলেছিলেন, “স্থিরতার সাথে সিজদাহ বিনা নামায সম্পূর্ণ হবে না।” (আবূদাঊদ, সুনান ৮৫৭ নং,হাকেম, মুস্তাদরাক) সিজদায় যাওয়ার পূর্বে ‘রফ্‌য়ে ইয়াদাইন’ করার বর্ণনাও সহীহ হাদীসে পাওয়া যায়। (সহিহ,নাসাঈ, সুনান ১০৪০ নং, দারাক্বুত্বনী, সুনান)সুতরাং কখনো কখনো তা করলে ... Read More »

মালালা ও নাবীলা : ইতিহাসের দু’টি ভিন্ন চিত্র

মালালা ও নাবীলা : ইতিহাসের দু’টি ভিন্ন চিত্র গত ১০ই অক্টোবর সুইডেনের নোবেল কমিটি পাকিস্তানের ১৭ বছরের তরুণী মালালা ইউসুফযাইকে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করেছে। মালালা হ’ল এযাবৎকালের সর্বকনিষ্ঠ এবং পাকিস্তানের দ্বিতীয় নোবেল জয়ী। মালালা শান্তির জন্য কি কাজ করেছে যে, তাকে নোবেল শান্তি পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে? এরূপ এক প্রশ্নের উত্তরে নোবেল কমিটির সভাপতি বলেন, ‘বয়সে তরুণ হলেও গত ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৩১)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী কওমায় হাত কোথায় থাকবে? সুন্নাহতে এ কথা স্পষ্ট যে, নামাযীর উভয় হাত নামাযে কিয়াম অবস্থায় বক্ষস্থলে থাকবে। কিন্তু ‘নামায’ ও ‘কিয়াম’ নির্দিষ্ট করে কোন্‌ অবস্থাকে বুঝানো হয়েছে তা নিয়ে মতভেদ রয়েছে। কিয়ামে হাত বাঁধা বলতেও কি (রুকূর আগের ও পরের) উভয় কিয়ামকেই বুঝায়? প্রত্যেক হাড় তার স্বস্থানে বা নিজ জোড়ে ফিরে যায় বলতে কি হাতও ... Read More »

তাফসীরে তাবারী ৯ম খন্ড

তাফসীর গ্রন্থ হলো মূলত মহান আল্লাহর তরফ হতে রাসূল (সা)-এর উপর নাযিলকৃত আল-কুরআনের আল-হাদীসের মাধ্যমে ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ। সাধারণ মানুষের জন্য আল-কুরআনের অন্তর্নিহিত ভাব ও মর্ম সহজবোধ্য হয়ে উঠে তাফসীর পাঠ করার মাধ্যমে। এজন্য ইসলামের প্রথম থেকে কুরআন ও হাদীসের বিশেষজ্ঞ ‘আলিমগণ সাধারণ মানুষের জন্য সহজসাধ্য করে রচনা করেছেন তাফসীর গ্রন্থ। এসব তাফসীর গ্রন্থের মধ্যে পবিত্র কুরআনের প্রখ্যাত ভাষ্যকার আল্লামা আবূ জা’ফর ... Read More »

জিহাদ ও জঙ্গীবাদ প্রেক্ষিত বাংলাদেশ

বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে আলোচিত ও স্পর্শকাতর বিষয় হল সন্ত্রাস। বিশেষ করে বাংলাদেশেও এই প্রসঙ্গ বর্তমানে হট কেক হিসেবে আলোচিত হচ্ছে। বর্তমানে সহীহ আক্বীদার ও আমলের অনুসারীদের এক প্রকার জুলুম করে অন্যায় অভিযোগ চাপিয়ে দিয়ে অন্যায় অত্যাচার করা হচ্ছে। চরমপন্থার অভিযোগ করে সহীহ আক্বীদার দাওয়াতী কার্যক্রমকে থামিয়ে দেয়অর চেষ্টা করছে। অথচ সহীহ আক্বীদা ও আমলের অনুসারীরা সকল প্রকার চরমপন্থার বিরোধী সেইসাথে ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ৩০)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী কওমাহ্‌ অতঃপর আল্লাহর রসূল (সাঃ) রুকূ থেকে মাথা ও পিঠ তুলে সোজা খাড়া হতেন। এই সময় তিনি বলতেন,  سَمِعَ اللهُ لِمَنْ حَمِدَه। “সামিআল্লাহু লিমানহামিদাহ্‌।” (অর্থাৎ, আল্লাহর যে প্রশংসা করে তিনি তা শ্রবণ করেন। (বুখারী, মুসলিম,  মিশকাত ৭৯৯ নং) নামায ভুলকারী সাহাবীকে তিনি এ কথা বলতে আদেশ করে বলেছিলেন, “কোন লোকেরই নামায ততক্ষণ পর্যন্ত সম্পূর্ণ হবে ... Read More »

দল, ইমারত ও বায়আত সম্পর্কে উলামাগণের বক্তব্য (পর্ব ৭)

দল, সংগঠন, ইমারত ও বায়‘আত সম্পর্কে বিশিষ্ট উলামায়ে কেরামের বক্তব্য (সপ্তম পর্ব) সিরিয়ার প্রসিদ্ধ আলেম শায়খ আদনান ইবনে মুহাম্মাদ আল-আরউর([1]) বৈধ ঐক্যবদ্ধতা এবং নিষিদ্ধ দলাদলির মধ্যে পার্থক্য: যেহেতু পারস্পরিক সহযোগিতা শরী‘আতে বৈধ; বরং ওয়াজিব। আর পারস্পরিক এই সহযোগিতার জন্য কখনো কখনো দলবদ্ধ হওয়ার এবং দলবদ্ধ লোকগুলিকে পরিচালনার প্রয়োজন পড়ে, সেহেতু এই বিষয়টি নিয়ে অনেকেরে মধ্যে তালগোল পাকিয়ে গেছে। ফলে তারা ... Read More »

সলাতে মুবাশ্‌শির (পর্ব ২৯)

রচনায় : আব্দুল হামীদ ফাইযী রুকূ ও তার পদ্ধতি ‘রফয়ে য়্যাদাইন’ করে নবী মুবাশ্‌শির (সাঃ) তকবীর বলে রুকূতে যেতেন। রুকূ করা ফরয। মহান আল্লাহ বলেন, يا أَيُّهَا الَّذِيْنَ آمَنُوا ارْكَعُوْا وَاسْجُدُوْا।।।।। অর্থাৎ, হে ঈমানদাগণ! তোমরা রুকূ ও সিজদা কর—। (কুরআন মাজীদ ২২/৭৭) মহানবী (সাঃ) ও নামায ভুলকারী সাহাবীকে তকবীর দিয়ে রুকূ করতে আদেশ করে বলেছেন, “তোমাদের মধ্যে কারো নামায ততক্ষণ ... Read More »